অন্দরসজ্জা চিত্রকর্মের প্রেরণায় - Pirojpur News | পিরোজপুর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ

সর্বশেষ খবর

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Tuesday, December 15, 2020

অন্দরসজ্জা চিত্রকর্মের প্রেরণায়


দেশের স্থাপত্যচর্চায় অগ্রণী ভূমিকায় রয়েছেন দুজন প্রখ্যাত স্থপতি তানিয়া করিম ও এন আর খান। দুই স্থপতিপরিচালনা করেন তাঁদের প্রতিষ্ঠান তানিয়া করিম, এন আর খান অ্যান্ড অ্যাসোশিয়েটস (http://www.tknrk.com)। তাঁদের সাম্প্রতিক কাজগুলোর মধ্যে তিনটি বাড়ির অন্দরসজ্জা বিশেষ উল্লেখের দাবি রাখে।

স্থপতিদ্বয়ের প্রযুক্তিজ্ঞান, নকশা উপাদানের সমসাময়িক ধারা সম্পর্কে জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার সঙ্গে নান্দনিকতার প্রতিফলন দেখা যায় তাঁদের সৃজনশীলতায়। পেশাদার স্থপতিরা যেভাবে একই টাইপ ও ফাংশনকে বাড়ির বাসিন্দাদের পছন্দ এবং জীবনধারার ওপর ভিত্তি করে, নান্দনিক এবং প্রযুক্তিগত জ্ঞানের সমন্বয় ঘটিয়ে অন্দরসজ্জাকে শিল্পে উন্নীত করেন, তার প্রতিফলন দেখা যায় এই তিন বাড়ির অন্দরসজ্জায়। আজ আলোচনা করা হলো তেমনি একটি বাড়ি নিয়ে।

লাল ট্রাভারটাইন পাথরে অভ্যর্থনা জানানো বাড়িটির অন্দরসজ্জা যেন মোগল বাদশা আকবরের জীবন দ্বারা প্রাণিত। বাড়িটির মাঝখানে গাঢ় সবুজ উঠান। এই সবুজ গালিচার চারপাশ সাজানো স্বচ্ছ কাচের দেয়ালে। আর এই লন পার হয়ে বাড়ির এক পাশ থেকে অন্য পাশ সহজেই দৃষ্টিগোচর হয়।

দুর্লভ ও মূল্যবান অনেক চিত্রকর্ম আর শিল্পকর্ম এ বাড়ির বিশেষ আকর্ষণ। সেগুলোকে নানা দেয়ালে যত্নে সাজানো, যেখানে বিন্যাসভাবনার ছাপ স্পষ্ট। চিত্রকর্মগুলির গুরুত্ব বিষয় এবং আবহের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই দেয়ালগুলোকে রাঙানো হয়েছে।


মোগল আমলের স্কয়ার নাইট লাইটিং বাড়ির আরেকটি উল্লেখযোগ্য নকশা উপাদান। রাতের খাবারের সময় পারিপার্শ্বিক এইসব চিত্রকর্ম আর নাইট লাইটিং অতিথিদের নিয়ে যায় অন্য এক জগতে। সম্রাট আকবর তাঁর নিকটাত্মীয় আর অতিথিদের যেভাবে আপ্যায়ন করতেন, এই যুগে তেমনি একটি আবহ তৈরি করা হয়েছে।


ছোট একটি ফোয়ারা; সবুজ লনের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে জলাধারে এসে মিশেছে জলধারা। এটা আবার বাড়ির ভেতর ও বাইরে বিভক্ত। পেইন্টিং, শিল্পসামগ্রীর সঙ্গে সময় কাটানোর আনন্দকে বাড়ির বাসিন্দাদের সঙ্গে সংযুক্ত করার এই আর্টই স্থপতিদ্বয়ের অন্দরসজ্জার মুনশিয়ানা।

অ্যান্টিক আসবাবগুলো বংশানুক্রমিকভাবে এই পরিবারের ঐতিহ্য বহন করছে। এখানে রয়েছে পরম্পরা আর সময়ের স্মৃতিচিহ্ন। এসব ঐতিহাসিক আসবাবের সঙ্গে মিল রেখে রং ও ফিনিশ উপকরণগুলো বাছাই করা হয়েছে।

বাড়িটি দোতলা। এক বিঘা জমির ওপর নির্মিত। কোর্টইয়ার্ডকে ঘিরেই করা হয়েছে স্থাপত্য নকশা। এ ছাড়া এই বাড়িতে রয়েছে একটি রুফটপ গার্ডেন।

মূল প্রবেশমুখেই রয়েছে একটি অ্যান্টিক দরজা। আর এটা এমনভাবে বসানো হয়েছে, যাতে লবি থেকে কোর্টইয়ার্ড অনায়াসে দৃষ্টিগোচর হয়।

বাড়িটির অন্দরসজ্জার মূল প্রেরণা আসলেই চিত্রকর্ম। কারণ, বাড়িটি যাঁদের, তাঁদের রয়েছে পারিবারিকভাবেই পেইন্টিংয়ের ঈর্ষণীয় সংগ্রহ।

Post Top Ad

Responsive Ads Here