৫ কারণে পরিবারের ছোটরাই জীবনে জয়ী হয়ে থাকেন - Pirojpur News | পিরোজপুর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ

সর্বশেষ খবর

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Sunday, January 13, 2019

৫ কারণে পরিবারের ছোটরাই জীবনে জয়ী হয়ে থাকেন

পরিবারের ছোট সদস্যটি সবার আদরের হয়। কিন্তু কোনো কাজ ওদের দিয়ে যে হবে না এটা ভেবে নেওয়া স্বাভাবিক। বাস্তব বিষয়ে ওদের অভিজ্ঞতা কমই হয়। তা ছাড়া পরিবারের সর্বকনিষ্ঠটা কাজের হবে না বলেও ধরে নেন সবাই। কিন্তু গবেষণা বলছে ভিন্ন কথা। এরা বড় হয়ে দারুণ কাজের হয়ে ওঠেন। পরিবারের সবাইকে হাসি-আনন্দে ভরিয়ে রাখেন। ছোটরাই হতে পারে পরিবারের মুকুট। এর পেছনে ৫টি বিজ্ঞানভিত্তিক যুক্তি তুলে ধরেছেন বিশেষজ্ঞরা।
১. এরা রোমাঞ্চপ্রিয় : বড় সন্তান সাধারণত ভাই-বোনের মধ্যে নেতৃত্বের স্থানটি দখল করে থাকেন। তা ছাড়া পরবর্তিতে  পরিবারের হাল ধরতে প্রস্তুতি নিতে থাকেন তারা। তাই নিজের অবস্থান থেকে ছোটরা অনেক বেশি রোমাঞ্চপ্রিয় হয়ে ওঠেন। তারা ঝুঁকি নিতে আগ্রহী থাকেন। এরা নানা বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতেও বদ্ধপরিকর। এ কারণে অনেক ক্ষেত্রে ছোটরাই অনেক বেশি উদ্ভাবনী ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হয়ে ওঠেন।
২. তারা হাস্য-কৌতুকপ্রিয় : ছোটরা অন্য ভাই-বোনের চেয়ে বেশি মজার চরিত্রে পরিণত হন। তাদের সেন্স অব হিউমার প্রখর থাকে। ২০১৫ সালের ইউগভ-এর এক জরিপে বলা হয়, পরিবারের বড় সন্তানরা নিজেদের সিরিয়াস ভাবতে পছন্দ করেন। কিন্তু ছোটরা মজা করতে পছন্দ করেন। এটা পরিবেশ ও প্রয়োজনের খাতিরেই ঘটে থাকে। বাবা-মায়ের দৃষ্টি কাড়তে  ছোটরা নানাভাবে উদ্যোগী হয়ে ওঠেন বলে জানান মনোবিজ্ঞানী রিচার্ড ওয়াইজম্যান।
৩. তারা অনেক আরামে থাকেন : ইউগভ-এর বার্থ অর্ডার জরিপে আরো বলা হয়, ছোটরা নানা পারিবারিক দায়িত্বশিলতা থেকে দূরে থাকার সুযোগ পান। এ কারণে তারা অনেক বেশি আরামে থাকেন। আবার ছোট হওয়ার সুবাদে বাবা-মায়ের কড়া শাসন তাদের ওপর একটু কমই প্রয়োগ হয়। আবার যখন ছোটরা বড় হয়ে যান, তখন বাবা-মায়ের বয়স হয়ে যায়। ফলে সেই শাসন আর থাকে না। সব মিলিয়ে ছোটরা বেশ মজায় থাকেন।
৪. বন্ধু তৈরিতে পারদর্শী : প্রথম সন্তান ইতিবাচক হলেও ছোটরা অনেক বেশি সামাজিক ও আনন্দপ্রিয় হয়ে থাকেন। পরিবারে অবস্থানের কারণেই এমনটা সহজাতভাবে ঘটে থাকে। ছোটদেরকে তার ভাই-বোনের মধ্যে নিজের অবস্থানটা করে নিতে হয়। আর তা করতে গিয়েই তারা মিশুক হয়ে ওঠেন। পরিবার থেকেই তারা সামাজিক হয়ে ওঠেন। বাইরে মানুষের সঙ্গে মিশতে আগ্রহী হয়ে ওঠেন। তারা শিখে নেন কিভাবে বন্ধুত্ব করতে হয়। ফলে অনেক বন্ধু থাকে তাদের। আবার অনেকে মনে করেন, ছোটদের সাইকোপ্যাথ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কারণ তারা বড়দের স্নেহে অনিয়ন্ত্রিত হয়ে ওঠেন এবং নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়েন। তবে আরো বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়, পরিবারের ছোট সন্তান এবং কুকর্মের মধ্যে কোনো সম্পর্ক নেই।
৫. তারা অনেক বেশি সৃষ্টিশীল : বড় সন্তানদের গড় মানের আইকিউ থাকে। কিন্তু ছোটরা অনেক বেশি সৃষ্টিশীল হয়ে থাকেন। ছোটরা ছোটকাল থেকেই পরিবারে অবস্থান পাকা করতে এমন পথ বেছে নেন, যে পথে বড়রা গিয়েছেন। পরিবার থেকে সর্বোচ্চ সুবিধা আদায়ে তারা নানা চিন্তা করে থাকেন। এই চর্চা তাদের সত্যিকার অর্থেই সৃষ্টিশীল করে তোলে। তাদের চাহিদা ও দক্ষতায় বৈচিত্র্য দেখা যায়।
তবে মনোবিজ্ঞানীদের অনেকে এ কথা মানতে নারাজ যে, জন্মের অবস্থান ব্যক্তিত্ব গঠনে প্রভাব ফেলে। তবে আপনি যদি পরিবারের কনিষ্ঠতম সদস্য হয়ে থাকেন, তাহলে নিজেই বুঝতে পারবেন যে সেখানে আপনিই সবার প্রিয়।

Post Top Ad

Responsive Ads Here