Header Ads

যুক্তরাষ্ট্রকে 'উপেক্ষা' করেই রুশ এস-৪০০ কিনছে ভারত


আন্তর্জাতিক মহলে আতঙ্ক ছড়িয়ে নিজেদের সামরিক বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করতে মরিয়া বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশগুলো। তারই জের ধরে শিগগিরই ভারতের সঙ্গে এস-৪০০ ভূমি থেকে আকাশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষর করবে রাশিয়া। ৪ এবং ৫ অক্টোবর ভারত সফরে দিল্লি আসছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাঁর উপস্থিতিতেই নয়াদিল্লিতে এই চুক্তি সম্পন্ন হবে বলে জানালেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অন্যতম কর্তা এবং পুতিনের অন্যতম সহযোগী ইউরি উসাকভ।
ভারতকে এই অত্যাধুনিক রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিক্রি করা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ভারতের রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ও প্রযুক্তি ব্যবহার নিয়ে বরাবরই নারাজ ছিল যুক্তরাষ্ট্র। গত অাগস্টেই মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক শীর্ষ কর্তা হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা কিনলে দিল্লিকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি হতে পারে। সম্প্রতি, বিশ্ববাজারে রুশ অস্ত্রের যোগান আটকাতে বিশেষ আইনও আনে যুক্তরাষ্ট্র। যে সমস্ত দেশ রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কিনবে, নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে তাদের ‘একঘরে’ করার কথাই বলা আছে এই আইনে। এই আইনের সাহায্যেই চীনের বিরুদ্ধে আর্থিক বিধিনিষেধ চাপিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। 
ভারত অবশ্য বরাবরই মার্কিন হুঁশিয়ারি অগ্রাহ্য করে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা কিনতে নিজের অবস্থানে অনড় ছিল। নিষেধাজ্ঞা আটকাতে গত সপ্তাহেই বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বিশেষ ছাড়ের আবেদন করে নয়াদিল্লি। অন্যদিকে, এ নিয়ে ভারতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে জানিয়েছিল মস্কো। দীর্ঘ দিন এই নিয়ে চলছিল টালবাহানা। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই বক্তব্যে শেষ পর্যন্ত সেই জট কাটল বলেই মনে করা হচ্ছে। ভারতের হাতে আসছে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী অত্যাধুনিক রুশ সমরাস্ত্র।
উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে রাশিয়া প্রথম সামনে আনে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা। এই ব্যবস্থা ৪০০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত শত্রু ক্ষেপণাস্ত্রকে চিহ্নিত করতে পারে এবং একই সঙ্গে ৪৮টি শত্রু ক্ষেপণাস্ত্রকে ধ্বংস করে মাটিতে নামাতে পারে এস-৪০০। অত্যাধুনিক যে সব যুদ্ধবিমানকে রাডারে ধরা যায় না, তাদেরও চিহ্নিত করতে পারে এই রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা। 

No comments

Powered by Blogger.