Header Ads

এক নজরে 'আইপিএল লড়াই'


জমে উঠেছে আইপিএলের এগারোতম আসর।  এরই মধ্যে নিজেদের সেরাটা মেলে ধরেছেন বিশ্বসেরা সব ত্রিকেটাররা।  সেই ধারাবাহিকতায় রাতে প্রায় একার হাতে রাজস্থান রয়্যালসকে মুম্বাইয়ের বিরুদ্ধে জয় এনে দিয়েছেন জস বাটলার।  আর এর ফলে একেবারে জমে গেছে প্লে অফে ওঠার লড়াই।  হায়দরাবাদ এবং চেন্নাই প্লে অফে উঠে গেছে। দিল্লি ছিটকে গিয়েছে আগেই। এখন শেষ দুই স্থানের জন্য লড়াই পাঁচটি দলের। 
দেখে নেওয়া যাক প্লে অফের লড়াইয়ে কোন দল কী অবস্থান।
সানরাইজার্স হায়দরাবাদ: আট দলের মধ্যে সবার আগে প্লে অফে উঠেছে সাকিব আল হাসানের দল।  লিগ টেবিলের যা অবস্থা, তাতে সানরাইজার্স প্রথম দুই দলের মধ্যে অন্যতম থেকেই প্লে অফ খেলবে। 
চেন্নাই সুপার কিংস: মুম্বাইকে রাজস্থান হারানোর সঙ্গে সঙ্গে প্লে অফে পৌঁছে যায় চেন্নাই। শেষ দুই ম্যাচের একটি জিতলেই প্রথম দুই দল হিসাবে প্লে অফে খেলবেন ধেনিরা। 
কিংস ইলেভেন পঞ্জাব: ১১ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে এখনও সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে অশ্বিনের দল। কিন্তু সোমবার বিরাট কোহালির আরসিবির বিরুদ্ধে হেরে গেলে প্রীতি জিন্তার দলের প্লে-অফে ওঠার কাজটা অনেকটাই কঠিন হয়ে যাবে।
কলকাতা নাইট রাইডার্স: এই মুহুর্তে চার নম্বরে থাকলেও কলকাতার প্লে অফে ওঠার সহজতম শর্ত বাকি দুই ম্যাচ জেতা। একটি ম্যাচ জিতলেও প্লে অফে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকছে, তবে সে ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা নেবে নেট রান রেট। 
রাজস্থান রয়্যালস: রাজস্থানের শেষ দুই ম্যাচ কলকাতা এবং বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে। এই দুই দলকে হারাতে পারলেই প্লে অফে যাবে রাজস্থান। একটি ম্যাচ জিতলেও প্লে অফে যেতে পারে রাজস্থান, তবে সে ক্ষেত্রে রান রেটের অনেকটাই উন্নতি করতে হবে। 
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স: বাটলারের হাতে রবিবার রাতে হেরে প্লে অফের লড়াইয়ে বেশ কিছুটা পিছিয়ে পড়েছে মুম্বাই। প্লে অফে উঠতে হলে শেষ দুই ম্যাচে পঞ্জাব এবং দিল্লির বিরুদ্ধে শুধু জিতলেই চলবে না, বিশাল ব্যবধানে জিততে হবে মুস্তাফিজদের। 
রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু: প্লে অফে ওঠা বেশ কষ্টকর হলেও সামান্য আশা রয়েছে বেঙ্গালুরুরও। শর্ত একটাই, বাকি সব ম্যাচ জিততে হবে এবং বড় ব্যবধানে। 
দিল্লি ডেয়ারডেভিলস: প্লে অফের লড়াই থেকে ছিটকে যাওয়া একমাত্র দল। ১২ ম্যাচের মধ্যে মাত্র ৩টিতে জিতেছে দিল্লি। বাকি দুই ম্যাচ জিতলেও সর্বোচ্চ ১০ পয়েন্টে পৌঁছতে পারবেন শ্রেয়াস আইয়াররা।

No comments

Powered by Blogger.