Header Ads

বেলুনে চড়ে মহাকাশের পথে টেডি বিয়ার!

যুক্তরাজ্যের একটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা হিলিয়াম গ্যাস ভর্তি একটি বেলুন আকাশে উড়িয়ে দিয়েছিল। সঙ্গে বাধা ছিল একটি টেডি বিয়ার। মজার বিষয় হচ্ছে, বেলুনটি টেডি বিয়ারটিকে মহাকাশের দ্বিতীয় সর্বচ্চো স্তর স্ট্রাটস্ফিয়ার পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল। অর্থ্যাৎ ভূ-পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১ লাখ ফিট উপরে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, টেডি বিয়ারটির নাম ছিল রোফফা। আর এই নামটি রেখেছিল কিংস রোচেস্টার প্রিপারেটরি স্কুলের শিক্ষার্থীরা। জানা যায়, বেলুনটি ২৯ মাইল ভ্রমণের পর বাতাসের চাপ সহ্য করতে না পেরে ফেটে যায়। এর আগে রোফফা সাড়ে চার ঘণ্টা ভ্রমণ করে। পরবর্তীতে রোফফাকে ইংল্যান্ডের হ্যাডলো এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটি একটি প্রজেক্ট ছিল যার নাম ছিল অপারেশন কস্মিক ডাস্ট। এই প্রজেক্টের আওতায় ওই টেডিবিয়ারের সঙ্গে বিশেষ ক্যামেরা যুক্ত ছিল এবং নম্বর দেওয়া ছিল। এর থেকেই রোফফার অবস্থান জানা যায়।যুক্তরাজ্যের একটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা হিলিয়াম গ্যাস ভর্তি একটি বেলুন আকাশে উড়িয়ে দিয়েছিল। সঙ্গে বাধা ছিল একটি টেডি বিয়ার। মজার বিষয় হচ্ছে, বেলুনটি টেডি বিয়ারটিকে মহাকাশের দ্বিতীয় সর্বচ্চো স্তর স্ট্রাটস্ফিয়ার পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল। অর্থ্যাৎ ভূ-পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১ লাখ ফিট উপরে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, টেডি বিয়ারটির নাম ছিল রোফফা। আর এই নামটি রেখেছিল কিংস রোচেস্টার প্রিপারেটরি স্কুলের শিক্ষার্থীরা। জানা যায়, বেলুনটি ২৯ মাইল ভ্রমণের পর বাতাসের চাপ সহ্য করতে না পেরে ফেটে যায়। এর আগে রোফফা সাড়ে চার ঘণ্টা ভ্রমণ করে। পরবর্তীতে রোফফাকে ইংল্যান্ডের হ্যাডলো এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটি একটি প্রজেক্ট ছিল যার নাম ছিল অপারেশন কস্মিক ডাস্ট। এই প্রজেক্টের আওতায় ওই টেডিবিয়ারের সঙ্গে বিশেষ ক্যামেরা যুক্ত ছিল এবং নম্বর দেওয়া ছিল। এর থেকেই রোফফার অবস্থান জানা যায়।

No comments

Powered by Blogger.