Header Ads

স্মিথ—দ্য নিউ ব্র্যাডম্যান!

অ্যাশেজে কী দুর্দান্ত খেলাটাই না খেললেন স্টিভেন স্মিথ। অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক পার্থে ২৩৯ রানের মহাকাব্যিক এক ইনিংসে ইংল্যান্ডের হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়েছেন অ্যাশেজ। কেবল পার্থেই নয়, গোটা সিরিজে ধারাবাহিকতার অসাধারণ নজির রেখে ৪ ইনিংসে ১৪২ গড়ে ৪২৬ রান করেছেন। এবারের অ্যাশেজটা যেন হচ্ছে স্মিথ বনাম ইংল্যান্ড। স্যার ডন ব্র্যাডম্যানকে খুব করেই মনে করিয়ে দিচ্ছেন ২৮ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

স্মিথ কেবল ব্র্যাডম্যানকে মনেই করিয়ে দিচ্ছেন না। দারুণ এক রেকর্ডে সর্বকালের সেরা ব্যাটিং-প্রতিভার সঙ্গেই ব্র্যাকেটবন্দী হচ্ছেন। ২২টি সেঞ্চুরির মধ্যে ১৪টিই অধিনায়ক হিসেবে। অস্ট্রেলিয়ার দলপতি হিসেবে এখন পর্যন্ত তিনি ২৯টি টেস্ট ম্যাচে মাঠে নেমেছেন। স্মিথের মতোই অধিনায়ক হিসেবে ব্র্যাডম্যানের সেঞ্চুরির সংখ্যা ১৪।

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে মাত্র পাঁচজন অধিনায়ক অ্যাশেজে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন। এবারের অ্যাশেজে সে রেকর্ডের অংশ হয়েছেন ক্যারিয়ারে ৫৯ টেস্ট খেলা স্মিথ। অদ্ভুত স্ট্যান্সের কারণে আলাদাভাবে আলোচনার জন্ম দেওয়া স্মিথ আর ব্র্যাডম্যান ভিন্ন দুই ঘরানার হলেও ব্যাটিংয়ের এক জায়গায় দুজনের দারুণ মিল। স্মিথও বাতাসে খুব বেশি খেলেন না। ঠিক যেভাবে খেলতেন অস্ট্রেলীয় কিংবদন্তি। ব্র্যাডম্যানের মতোই প্রতিপক্ষের অধিনায়কের জন্য ফিল্ডিং সাজানোকে সমস্যার কাজ বানিয়ে তোলেন।

১৯২৮ থেকে ১৯৪৮ পর্যন্ত ক্যারিয়ারটা ব্র্যাডম্যান শেষ করেছিলেন ৯৯.৯৪ গড় নিয়ে। অবিশ্বাস্য এই গড়টা হয়তো স্মিথ কোনোদিনই ছুঁতে পারবেন না। পারবেন না হয়তো কেউই। কিন্তু ২০১০ সালে অভিষেকের পর থেকে স্মিথ ব্যাট হাতে যা করছেন, তাঁকে আধুনিক ক্রিকেটের ব্র্যাডম্যান বলা শুরু হয়ে গেছে। ৫৯ টেস্টের ক্যারিয়ারে ৬২.৩২ ব্যাটিং গড়। কমপক্ষে ১৫ টেস্ট খেলা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তাঁর ব্যাটিং গড় কেবল ব্র্যাডম্যানের পেছনে!

No comments

Powered by Blogger.