Header Ads

কৃষি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ যশোরে দুই ফসলি জমিতে উৎপাদন হচ্ছে তিন ফসল

দেশে প্রতিবছর ১ শতাংশ হারে কৃষিজমি কমছে। অন্যদিকে জনসংখ্যা বাড়ছে এক লাখ করে। যে কারণে দুই ফসলি জমিতে তিন অথবা চার ফসলে রূপান্তরের বিকল্প নেই। সেই লক্ষ্যে স্বল্প জীবনকালের ফসলের জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। যশোর অঞ্চলের কৃষকেরা ইতিমধ্যে দুই ফসলি জমিতে তিন ফসলি জাতের ফসল উৎপাদন শুরু করেছেন।

বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উদ্ভাবিত ফসলের জাত পরিচিতি, সম্প্রসারণ কৌশল, চাষাবাদ পদ্ধতি এবং নতুন শস্যবিন্যাস অন্তর্ভুক্তিকরণ শীর্ষক এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় এসব তথ্য জানানো হয়েছে। গতকাল শুক্রবার যশোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর প্রশিক্ষণকক্ষে ৬২ জন কৃষি কর্মকর্তাকে এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

প্রশিক্ষণে বিনা উদ্ভিদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা রেজা মোহাম্মদ ইমন বলেন, বিনা উদ্ভাবিত ফসলের সব জাতের জীবনকাল কম। তবে উৎপাদন বেশি। আগে যে জমিতে দুই ফসল হতো, এখন সেখানে তিন ফসল ফলানো হচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠান থেকে এ পর্যন্ত ১৬টি ফসলের ৯৮টি জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। এ জাতের ফসল ফলানোর জন্য কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদের অবহিত করা হচ্ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের উপপরিচালক কাজী হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক চণ্ডী দাশ কুণ্ডু।

No comments

Powered by Blogger.